২২টি আল-খালিদ এমবিটি পাচ্ছে পাকিস্তান সেনাবাহিনী

পাকিস্তানে চীনা সামরিক সহায়তা অব্যাহত রয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় ২২টি আল খালিদ মেইন ব্যাটল ট্যাঙ্ক (এমবিটি) পুরোপুরি সিকেডি অবস্থায় রাখা হয়েছে। চীন-পাকিস্তান আল খালিদ-১ প্রকল্পের মতো এসব ট্যাঙ্কও পাকিস্তানে সংযোজন করা হবে।

এসব ট্যাঙ্ক টাইপ ৯০ ২এম সংস্করণের মতো। এগুলো উৎপাদন করা হয়েছে চায়না নর্থ ইন্ড্রাট্রিজ গ্রুপ করপোরেশন লিমিটেডে।

এদিকে প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা অক্টোবরে করাচিতে আল খালিদ ১-এর ফিল্ড ফায়ারিং মহড়া প্রত্যক্ষ করেছেন।

তাছাড়া পাকিস্তান এই প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে চার হাজার রিমোটলি ডেলিভারেবল মাইন ও সংশ্লিষ্ট সরঞ্জাম সংগ্রহ করতে চাচ্ছে। এসব মাইন হাতে বসানোর প্রয়োজন পড়বে না। তবে ট্যাঙ্ক থামানোর জন্য একেবারে শেষ মুহূর্তে যুদ্ধক্ষেত্রে যান্ত্রিকভাবে স্থাপন করা যেতে পারে। আরডিএমগুলো শিগগিরই আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পাকিস্তান ট্যাঙ্কবিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের সাহায্যেও ট্যাঙ্কের গতি রুদ্ধ করার পরিকল্পনা করছে। তুর্কি প্রতিষ্ঠান ওএমএটিএস ছাড়াও ইউক্রেনের প্রতিষ্ঠানও সংক্ষিপ্ত তালিকায় আছে।

চীন ছাড়া পাকিস্তানের হাতে প্রতিরক্ষা সরঞ্জামাদি সরবরাহ পাওয়ার জন্য খুব কম বিকল্পই আছে। এই গুটিকতেকের মধ্যে আছে তুরস্ক। তারা পাকিস্তান নৌবাহিনীকে সহায়তা করছে।

উৎস, সাউথএশিয়ানমনিটর

Previous post ধর্মীয় অনুভূ‌তিতে আঘাত: পটুয়াখালীর সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মিঠু গ্রেফতার
Next post ইসরাইলকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য চাপের মধ্যে রয়েছি: ইমরান খান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *