মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২৫, ২০২২

মুন্সীগঞ্জে নৌকা স্লোগান দিয়ে হাসপাতালে হামলা-ভাঙচুর, আহত ৩

মিরকাদিম পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে মুন্সীগঞ্জ মিরকাদিমের রিকাবীবাজার বটতলায় ফাতেমা জেনারেল হাসপাতালে হামলা ভাঙ্চুরের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় হাসপাতালটিতে কর্মরত শেখ সাদি (৩০), আল-আমিন (৩৮) ও জুয়েল (৩৮) নামে ৩ জনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে হামলাকারীরা।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, নির্বাচন থেকে সরে যাওয়া বর্তমান মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীনের প্রতিষ্ঠানে এই হামলা চালিয়েছে নৌকা প্রার্থী আব্দুস সালাম সমর্থকরা। হামলাকালে হাসপাতালটিতে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বর্তমান মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীনের মালিকানাধীন ফাতেমা জেনারেল হাসপালটিতে বৃহস্পতিবার রাত ৭টার দিকে একদল সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে জয় বাংলা জিতবে এবার নৌকা এই স্লোগান দিয়ে হাসপাতালটিতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙ্চুর চালায়। ভয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে হাসপাতলটিতে ভর্তি থাকা রোগীরা।

এব্যাপারে হাসপাতালটির ম্যানেজার সবুজ বলেন, পরিকল্পিতভাবে এই হামলা চালানো হয়েছে। হামলার মূল কারণ হাসপাতালটি বর্তমান মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীনের পাটনারশিপ রয়েছে। তাই অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে দেয় তারা। এসময় হাসপাতলে ভাঙচুরের পাশাপাশি ৩ জন স্বাস্থ্য কর্মিকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে।

মিরকাদিম পৌর মেয়র শহিদুল ইসলাম জানান, নৌকাকে শ্রদ্ধা করে, নৌকাকে ভালোবেসে পৌর নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছি। তারপরেও জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক মনছুর আহামেদ কালামের লোকজন বিভিন্নভাবে আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও লোকজনকে মারধর করে চলেছে। বিষয়টি বেশ কয়েকবার পুলিশকে জানিয়েছি। ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছি। কোন ব্যবস্থা নেয়নি। আজকে তারা আমার হাসপাতালে হামলা চালালো। আমার লোকদেরকে মারলো। হাসপাতল থেকে টাকা পয়সাও নিয়ে গেল। হাসপাতালের রোগীরা ভয়ে চলে গেছে। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।

এদিকে, আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনকে সামনে রেখে মিরকাদিমে উত্তেজনা বিরাজ করছে। মেয়র সমর্থিত আওয়ামী লীগের একটি অংশ এলাকায় যেতে পারছেনা বলে অভিযোগ রয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিক বৃহস্পতিবার রাতে জানান, ঘটনাটি শুনতে পেরে আমরা হাসপাতালে যাই। এ ঘটনায় এখনো কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img