মঙ্গলবার, নভেম্বর ৩০, ২০২১

আড়তদার ও মিলাররা চালের দাম বাড়িয়েছে: অভিযোগ কৃষিমন্ত্রীর

আড়তদার ও মিলাররা চালের দাম বাড়িয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক।

তিনি বলেন, দুই দফা বন্যায় আউশ ও আমনের ফলন ভালো হয়নি। এছাড়া বোরো মৌসুমে ধান-চাল সংগ্রহ অভিযান সফল হয়নি। এ কারণে সরকারের হাতে চালের ঘাটতি রয়েছে। বর্তমানে সরকারের কাছে ১৩ লাখ মেট্রিক টন চাল মজুদ থাকার কথা। কিন্তু খাদ্যগুদাম গুলোতে ৮ লাখ মেট্রিক টন চাল মজুদ রয়েছে। এ সুযোগে মজুদদার, আড়তদার ও মিল মালিকরা চালের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।

রোববার বিকেলে কৃষিমন্ত্রী ঢাকা থেকে জুম প্লাটফর্মের মাধ্যমে গোপালগঞ্জে যুক্ত হয়ে একটি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকার ইতোমধ্যে নানামুখী উদ্যাগ গ্রহণ করেছে। চলের আমদানি শুল্ক সাড়ে ৬২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ করা হয়েছে। সরকারি ও প্রাইভেট পর্যায়ে ভারত, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া ও ভিয়েতনাম থেকে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত হয়েছে। ৬ লাখ মেট্রিক টন চাল আমদানির জন্য এলসি খোলা হয়েছে। এর বেশি চাল আমদানি করা হবে না।

তিনি বলেন, এ মাসেই ভারত থেকে ৫০ হাজার মেট্রিক টন সিদ্ধ চাল আমদানি করা হচ্ছে। দালের দাম বৃদ্ধিতে কেউ না খেয়ে থাকবে না। কেউ ক্ষুধায় কষ্ট পাবে না। এজন্য ওএমএস চালু করা হয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, আসন্ন বোরো মৌসুমে ধানের উৎপাদন বাড়াতে ৫০ হাজার হেক্টর জমিতে ধানের চাষাবাদ বৃদ্ধি করা হচ্ছে। এছাড়া ২ লাখ হেক্টরে হাইব্রিড ধানের চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এজন্য কৃষককে সার, বীজসহ সব ধরনের সহযোগিতা দেয়া হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে ও আল্লাহ সহায় থাকলে আগামী বোরো মৌসুমে ধানের বাম্পার ফলন হবে।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img