বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২৭, ২০২২

ব্রিটেনে খ্রিষ্টানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ক্রিসমাস বাতিল

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন কোভিড-১৯ বিধিনিষেধ টিয়ার-৪ ঘোষণা দিয়েছেন।

এর ফলে ব্রিটেন জুড়ে ১৭ মিলিয়ন মানুষের ক্রিসমাস বাতিল হয়েছে।

ভাইরাস সংক্রমণের বাড়তি ঝুঁকি এড়াতে প্রধানমন্ত্রী এই পদক্ষেপ নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

মহামারি মোকাবেলায় লন্ডনসহ সাউথ ইস্ট ইংল্যান্ডে আজ থেকেই কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে।

নতুন ঘোষণায় জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। ইতিপূর্বে নর্দার্ণ আয়ারল্যান্ড ছয় সপ্তাহের লকডাউন এবং ওয়েলস তিন সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণা করেছে।

ওই সময় লকডাউন না দিয়ে বরিস জনসন বলেছেন, ইংল্যান্ডে তৃতীয় লকডাউন এড়ানো যাবে বলে তিনি আশাবাদী। কিস্তু শেষ মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রীর ইউ-টার্ন ‘অসঙ্গতি এবং বিভ্রান্তিকর’ বলে অভিযুক্ত করা হচ্ছে। এনিয়ে বহু মানুষের মধ্যে ক্রোধের সৃষ্টি হয়েছে।

নতুন ঘোষণা মোতাবেক বিনোদন ও সেবা সার্ভিস এবং অ-অপরিহার্য দোকানগুলি বন্ধ করতে বাধ্য করা এবং ক্রিসমাস দিবসে বাধ্যতামূলক ‘বাড়িতে থাকার’ আদেশসহ ভ্রমণে বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে।

এছাড়া জরুরি প্রয়োজন ছাড়া সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। অথচ নির্মাণ শ্রমিক এবং সেখাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের কর্মক্ষেত্রে যাওয়ায় কোনো নিষেধাজ্ঞা থাকছে না। এধরণের সিদ্ধান্তকে অযৌক্তিক ও অমানবিক মনে করেন কেউ কেউ।

বরিস জনসন বড়দিন পারিবারিকভাবে উৎযাপন করার কথা বলেছেন। তবে বাসার বাইরে কোনো উৎসব বা সমাবেশ করা যাবে না বলে ঘোষণায় জানিয়েছেন।

টিয়ার-৪ যেসব এলাকায় ঘোষণা করা হয়েছে সেখানে বাইরে থেকে প্রবেশ না করার আহবান জানিয়েছেন বরিস জনসন। এই কড়াকড়ি দুই সপ্তাহের জন্য ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ৩০শে ডিসেম্বর এটি আবারো পর্যালোচনা করে দেখা হবে।

নতুন টিয়ার-৪ নিয়মটি মূলত ইংল্যান্ডে নভেম্বরে যে টিয়ার-৩ সাউথ ইস্ট অঞ্চল হিসেবে লকডাউনের অধীনে ছিল। সাউথ ইস্ট এর মধ্যে রয়েছে কেন্ট, বাকিংহামশায়ার, বার্কশায়ার, সারে (ওয়েভারলি বাদে), গোসপোর্ট, হাভান্ট, পোর্টসমাউথ, রথার এবং হেস্টিংসক। এটি সমস্ত লন্ডন (৩২টি বারা/শহর) এবং ইস্ট ইংল্যান্ড (বেডফোর্ড, সেন্ট্রাল বেডফোর্ড, মিল্টন কেন, লুটন, পিটারবারো, হার্টফোর্ডশায়ার, এসেক্স (কোলচেস্টার, উটলসফোর্ড এবং টেন্ডারিং বাদে) এর ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে।

যুক্তরাজ্যের করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের পরিমাণ গত শনিবার ২৭,০৫২ জন বেড়েছে। মোট সংক্রমণের সংখ্যা দুই মিলিয়নে চলে গেছে। নতুন আরও ৫৩৪ জন মারা গেছেন। মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৭৬,২৮৭ জনে দাঁড়িয়েছে।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

news-27-january-thursday-2022

news-27-january-thursday-2022-33

news-27-january-thursday-2022-32

news-27-january-thursday-2022-31

news-27-january-thursday-2022-30

news-27-january-thursday-2022-29

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img