রবিবার, আগস্ট ১, ২০২১

ইসলামভীতির এমন বাড়বাড়ন্ত এর আগে কখনোই ছিল না: তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ইনসাফ | নাহিয়ান হাসান


বিশ্বজুড়ে এমনভাবে ইসলামভীতি বৃদ্ধি পেয়েছে যা এর আগে কখনোই ছিল না বলে মন্তব্য করেছেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাওলুদ চাভুশ ওগলু।

শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) নাইজারের রাজধানী নিয়ামে অনুষ্ঠিত ওআইসির ৪৭তম অধিবেশনে বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এই কথা বলেন।

তিনি বলেন, ২০২০ সালটি সবার জন্য চ্যালেঞ্জিং বছর। তাছাড়া, কোভিড-১৯ ভাইরাসের সংক্রমণ, বর্ণবাদের বৈষম্য, অভিবাসন বিরোধী আইন ও ইসলাম ভীতি বিশেষত ইউরোপের দেশগুলোতে এমনভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে যা এর আগে কখনোই ছিল না।

এসময়, জার্মান অভিবাসী তুর্কী মুসলিম বিজ্ঞানী ওগুর শাহিন ও ওজলেম তুরেজী কর্তৃক কোভিড-১৯ ভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, অভিবাসী এবং মুসলমানরা কারো জন্য বোঝা বা ক্ষতির কারণ নয় বরং পুরো বিশ্ববাসী ও তাদের সমাজের জন্য তারা অনন্য অবদান রেখে চলেছেন।

এমনকি, নভেম্বরে মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট ফাইজারের সহোযোগিতা প্রাপ্ত তাদের নিজস্ব কোম্পানি বায়োএনটেকে তৈরিকৃত কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিনটি ৯০% কার্যকর ভূমিকা রাখার সাফল্যের খবরটি পুরো বিশ্বব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি করে!

সন্ত্রাসবাদ দমনের নামে পশ্চিমাবিশ্বের লাখ লাখ শান্তশিষ্ট ও শান্তিপ্রিয় মুসলিমদের শান্তি বিনষ্ট করা হচ্ছে উল্লেখ করে তুর্কী পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইউরোপে দূরদর্শী নেতার অভাব রয়েছে। এমনকি তাদের মধ্যে কেউ কেউ পবিত্র ও স্বয়ংসম্পূর্ণ ধর্ম ইসলামকে সংস্কারেরও দুঃসাহস দেখায়!

এসময়, ফ্রান্সের আলবার্টভিলায় পুলিশ কর্তৃক মিথ্যা অভিযোগে গ্রেফতারকৃত মুসলিম শিশুদের ১১ ঘন্টা আটকে রেখে ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টিকে ‘সন্ত্রাসবাদের ক্ষমা’ নামে আখ্যায়িত করে চাভুশ ওগলু বলেন, আমাদের অবশ্যই এই ধরনের ভয়ংকর পদক্ষেপ ও বিষয় সম্পর্কে সজাগ থাকতে হবে। এজন্য আমাদের উচিত হবে আমাদের লাল সীমারেখা তাদের জন্য স্পষ্ট করে দেওয়া।

ইহুদিবাদী অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের ব্যাপারে তিনি বলেন, ইহুদিবাদী অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সাথে আরব রাষ্ট্রগুলোর সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণ চুক্তি হল তাদের অবৈধ কর্মকাণ্ড ও অপরাধকে উৎসাহিত করা। কেনোনা, ফিলিস্তিনের ভূখণ্ডকে পুরোপুরি নিজেদের দখলে নিয়ে আসার পরিকল্পনা স্থগিতকরণ হল ধুরন্ধর ইহুদিবাদী ইসরাইলের একটি ধোকা।

তাছাড়া, ইহুদিবাদী ইসরাইলের লক্ষ্য হল, ক্রমান্বয়ে অবৈধ দখলের পরিধি বাড়িয়ে ফিলিস্তিনের অস্তিত্ব বিলিন করে, নিজেদের স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র গঠন করা! কেনোনা, ফিলিস্তিনের অস্তিত্ব থাকাবস্থায় তাদের স্বাধীন রাষ্ট্র গঠন করা কখনোই সম্ভব হবে না।

ওআইসির সদস্য দেশগুলোর কাছে ফিলিস্তিন ইস্যুটির গুরুত্ব হারাতে বসেছে উল্লেখ করে চাভুশ ওগলু বলেন, আমরা যদি একতাবদ্ধ না হয় এবং শক্তিশালী ঐক্য প্রতিষ্ঠা না করি, তবে ফিলিস্তিন ইস্যুকে কেন্দ্র করে আমাদের শত্রুরা আমাদের সদস্য দেশগুলোর ঐক্যকে আরো বিনষ্ট করতে থাকবে।

ওআইসি যে ঐক্য প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে আমরা যদি তা না করতে পারি, তবে আমরা কিভাবে মুসলিম উম্মাহর ঐক্য রক্ষা করবো? আর কেইবা আমাদের কথা গুরুত্ব সহকারে নিবে?

সর্বশেষ, ওআইসির সদস্যদেরকে আর্মেনিয়া থেকে আজারবাইজান তাদের ভূখণ্ড ফিরিয়ে নেওয়ার সুসংবাদ জানিয়ে চাভুশ ওগলু বলেন, উইঘুর, রোহিঙ্গা, তুর্কি সাইপ্রিয়টস এবং গ্রীসে থাকা তুর্কি মুসলিম সংখ্যালঘু, জম্মু-কাশ্মীরের ভাই-বোন এবং ইউরোপের মুসলমানরা সহ বিশ্বের সকল মুসলিমদের মৌলিক অধিকার রক্ষা ও স্বাধীনতার জন্যেও আমাদের আওয়াজ তুলা উচিত।

সূত্র: ইয়েনি শাফাক।

- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ