আমরা চাই আফগানিস্তানে ইসলামিক ব্যবস্থা কায়েম হোক: তালেবান

প্রায় দুই দশকের যুদ্ধে কয়েক হাজার মানুষ প্রাণ হারানোর পরে কাতারের রাজধানী দোহায় তালেবান ও আমেরিকার মদদপুষ্ট আফগান সরকারের মধ্যে ‘শান্তি’ আলোচনা শুরু হয়েছে।

গত শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দোহার একটি হোটেলে এ আলোচনা শুরু হয়।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তালেবানের অন্যতম প্রধান নেতা মোল্লা আবদুল গনি বেরাদার, আমেরিকার মদদপুষ্ট আফগান সরকারের জাতীয় পুনর্মিলনী পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আবদুল্লাহ ও আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তালেবানের অন্যতম প্রধান নেতা মোল্লা আবদুল গনি বেরাদার বলেন, আমার দলের পক্ষ থেকে আমি আফগানিস্তানে ইসলামী ব্যবস্থা প্রণয়নের কথা পুনর্ব্যক্ত করছি। আমরা চাই আফগানিস্তান একটি স্বাধীন ও উন্নত দেশ হোক এবং এতে ইসলামিক ব্যবস্থা কায়েম হোক, যেখানে এর সব নাগরিক নিজেদের আদর্শের প্রতিফলন দেখতে পাবে।

এতে আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আপনাদের ভবিষ্যৎ রাজনীতির রূপরেখা আপনাদেরই তৈরি করতে হবে। সেটা ঠিক করতে হবে খোলা মন নিয়ে আলাপ-আলোচনার মাধ্যম্যই। দুই পক্ষকেই একে অপরারের কথা বুঝতে হবে। দুই পক্ষকেই নিপুণভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। পুরো বিশ্ব আপনাদের দিকে তাকিয়ে আছে। তারা আপনাদের সফলতা দেখতে চায়।

আমেরিকা মদদপুষ্ট আফগান সরকারের প্রতিনিধি আবদুল্লাহ আবদুল্লাহ বলেন, আমি বিশ্বাস করি, আমরা যদি একটি মর্যাদাপূর্ণ ও স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার কাজে হাত মেলাই এবং সততার সাথে কাজ করি, তাহলে দেশে চলমান দুর্দশার অবসান হবে। তিনি ‘মানবিক’ কারণে যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *