বৃহস্পতিবার, মে ২৬, ২০২২

নিজেদের নির্দোষ দাবি করে হেফাজতের বিরুদ্ধে আল্লাহর কাছে বিচার দিল বি. বাড়িয়ার ছাত্রলীগ

ভারতের বিজেপি সরকারের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে গত ২৬ মার্চ জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে বাদ জুম’আ তাওহীদি জনতার ওপর সরকার দলীয় নেতাকর্মী ও পুলিশের হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার প্রতিবাদে একই দিন চট্টগ্রাম ও বি.বাড়িয়ায় বিক্ষোভ করলে প্রশাসন ও সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় হেফাজতের একাধিক কর্মী ইন্তেকাল করেন। পরবর্তীতে হেফাজতের ২৭ ও ২৮ তারিখের কর্মসূচিতে সংঘর্ষে ১৭ জন নিহত হন। নিহতদের প্রধান অংশই বি.বাড়িয়ায়। এ ঘটনায় বি.বাড়িয়ার স্থানীয় তাওহীদি জনতা ও হেফাজতে ইসলাম প্রশাসনের পাশাপাশি ছাত্রলীগসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনগুলোকে দায়ি করছে।

হেফাজত এবং তাওহীদি জনতার দাবিকে প্রত্যাখান করে আজ শুক্রবার (৯ এপ্রিল) বেলা ১১টায় বি.বাড়িয়ায় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে জেলা ছাত্রলীগ।

সংবাদ সম্মেলনে নিজেদের সম্পূর্ণ দোষমুক্ত বলে দাবি করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তার বলছে, তাদের কেউ মাদরাসার আশপাশেও যায়নি। এমনকি কেউ গুলিও চালায়নি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন বলেন, আমরা চ্যালেঞ্জ করে বলতে পারি ওইদিন আমাদের দলের মিছিলের কেউ মাদরাসায় কিংবা তার আশপাশে যায়নি। এমনকি কেউ গুলিও চালায়নি। তারা এ সংক্রান্ত কোনও তথ্য দিতে পারবে না। হেফাজতের এমন মিথ্যাচার আল্লাহ সইবেন না।

নিহতদের ঘটনায় মাদরাসার শিক্ষার্থীদের দায়ি করে ছাত্রলীগের এ নেতা বলেন, সারা পৃথিবী জেনেছে গত ২৬ মার্চ সমস্ত বাঙালি জাতি যখন স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করছিল, তখনই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ‘নারকীয় তাণ্ডব’ চালায় হেফাজত সমর্থিত মাদরাসার ছাত্ররা। হেফাজত নেতারা ঘটনার শুরু থেকেই মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে সাধারণ ধর্মপ্রাণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছেন বলেও তিনি দাবি করেন।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img