পশ্চিমে ইসলামভীতি নিরসনে আন্তধর্মীয় সংলাপের আহ্বান পাকিস্তান ও বসনিয়ার

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পশ্চিমা দেশগুলোকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, তারা যেন বাক স্বাধীনতাকে ‘অস্ত্র’ হিসেবে ব্যবহার করে মুসলিমদের মনে আঘাত না দেয়। এতে কট্টরপন্থা ও সহিংসতা আরও বেড়ে যেতে পারে বলেও সতর্ক করেন তিনি।

বুধবার (৪ নভেম্বর) সফররত বসনিয়া ও হার্জেগোভিনার প্রেসিডেন্সির চেয়ারম্যান সেফিক জাফেরোভিচের সাথে আয়োজিত এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে খান এ মন্তব্য করেন।

দুই নেতা সকল ধর্ম, বিশেষ করে ইউরোপে বসবাসরত মুসলিমদের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

ইমরান খান জোর দিয়ে বলেন, আমাদের নবী মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে ব্যাঙ্গ করলে এবং তাকে নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মক কার্টুন আঁকলে সেটা মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে ‘তীব্র যন্ত্রণার’ জন্ম দেয়।

পশ্চিমা দেশগুলোর উদ্দেশ্যে খান বলেন, তারা যেন বাক স্বাধীনতাকে ‘অস্ত্র’ হিসেবে ব্যবহার করে মুসলিমদের মনে আঘাত না দেয়। এতে কট্টরপন্থা ও সহিংসতা আরও বেড়ে যেতে পারে। আপনাদের অবশ্যই বুঝতে হবে যে, বাক স্বাধীনতাকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে আমাদের নবীকে অপমান করে মুসলিমদের যন্ত্রণা দিতে পারেন না। এটা যদি উপলব্ধি করা না হয়, তাহলে সহিংসতার এই চক্র ঘটতেই থাকে”।

ইউরোপের পরিস্থিতিকে ‘ইসলামভীতি’ হিসেবে উল্লেখ করে একে প্রত্যাখ্যান করেন সনিয়া ও হার্জেগোভিনার প্রেসিডেন্সির চেয়ারম্যান সেফিক। তিনি বলেন, মানুষের স্বাধীনতার সীমা থাকা উচিত নয়, কিন্তু মুসলিমদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়াটা গ্রহণযোগ্য নয়।

তিনি বলেন, “আমাদেরকে সেতুবন্ধন গড়তে হবে, আমাদেরকে একসাথে বসতে হবে, বিভিন্ন বৈচিত্রের মধ্যে আমাদেরকে ঐক্য গড়তে হবে”।

সূত্র: ভয়েজ অব আমেরিকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *