বিহারে বিধানসভা নির্বাচনে ৫ আসনে জয়ী ওয়াইসির দল; পশ্চিমবঙ্গে লড়ার ঘোষণা

ভারতের বিহার রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল-মুসলেমিন (মিম) পার্টি ৫ আসনে জয়ী হওয়ার পরে দলটি এবার পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর প্রদেশে লড়ার ঘোষণা করেছে। বিশেষকরে পশ্চিমবঙ্গে ‘মিম’-এর নির্বাচনে লড়াকে কেন্দ্র করে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

বিহারে উগ্র হিন্দুত্ববাদী বিজেপি-জেডিউ নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট জয়ী হয়েছে। অন্যদিকে, প্রধান প্রতিপক্ষ কংগ্রেস-আরজেডি নেতৃত্বাধীন মহাজোট পরাজিত হয়েছে। মোট ২৪৩ আসনের মধ্যে এনডিএ পেয়েছে ১২৫ আসন। মহাজোট পেয়েছে ১১০ আসন। সরকার গড়তে প্রয়োজন ১২২ আসন।

বিহারে ২০টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ৫টি আসন দখল করেছে ‘মিম’।

কংগ্রেসের পক্ষ থেকে মিমকে ‘ভোট কাটা পার্টি’ বলে কটাক্ষ করা হয়েছে। লোকসভায় কংগ্রেসের বিরোধী দলনেতা ও পশ্চিমবঙ্গের কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী এমপি ‘মিম’ দলকে ‘ভোট কাটা পার্টি’ বলে কটাক্ষ করেছে।

কিন্তু ৫ আসনে জয়ী হওয়ার পরে ‘মিম’ প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি বলেছেন, যারা তাদেরকে ‘ভোট কাটা পার্টি’ বলেছেন তারা উচিত জবাব পেয়েছে। ওয়াইসির প্রশ্ন, নিজের সংসদীয় ক্ষেত্রে মুসলিমদের কল্যাণের জন্য অধীর চৌধুরী কী করেছেন?

তৃণমূলের একাংশের দাবি, ওয়াইসির প্রভাব উর্দুভাষীদের মধ্যে যারা মাত্র ৬ শতাংশ। বাংলার মুসলিমরা ভোট দেয় যারা বিজেপিকে পরাজিত করতে পারে তাদেরকে। সেজন্য তৃনমূলই মুসলিম ভোট পাবে বলে তারা দাবি করছে। তবে আদতে মিমকে দোষারোপ ও কটাক্ষ করাকে বিশ্লেষক মহল ভুল বলেই অবহিত করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *