রবিবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২১

‘সুপার সোলজার’ তৈরি করছে চীন-ফ্রান্স

বিশ্বের পরাশক্তি দেশগুলো তৈরি করছে নতুন যুগের যুদ্ধের প্রস্তুতি হিসেবে বিশেষ ক্ষমতাসম্পন্ন সেনা।

অস্ত্র প্রতিযোগিতার দৌড়ে ইতোমধ্যে প্রকল্প শুরুর ঘোষণা দিয়েছে চীন ও ফ্রান্স।

যুদ্ধক্ষেত্রে শুধু হত্যা করার লক্ষ্যে ল্যাবে তৈরি হচ্ছে ‘ক্যাপ্টেন আমেরিকা’ ও ‘টারমিনেটর’র মতো ‘নতুন প্রজন্মের সেনা’। যাদের নাম দেয়া হয়েছে ‘সুপার সোলজার’।

মূলত ডিএনএ সংস্কার, বায়ো ইঞ্জিনিয়ারিং ও উন্নত রোবট প্রকৌশলের সমন্বয়ে তৈরি এসব সেনাকে শিগগিরই যুদ্ধক্ষেত্রে সাধারণ সেনার মতোই দেখা যাবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। সেই সঙ্গে সুপার সোলজার নিয়ে উদ্বেগও জানাচ্ছেন তারা।

আগামী দিনে আরও ভয়ংকর সব অস্ত্রশস্ত্র দেখা যাবে বলেই মনে হচ্ছে। দক্ষিণ চীন সাগরে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সামরিক উত্তেজনার মধ্যে সম্প্রতি ‘সুপার সোলজার’ বানানোর ঘোষণা দেয় চীন। এরপর আনুষ্ঠানিকভাবে সে পথেই হাঁটার ঘোষণা দিয়েছে ফ্রান্সও।

দেশ দুটি বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি ব্যবহার করে সৈন্যদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করবে। বিশেষ প্রজাতির এই সেনাদের তৈরি করা হবে কেবল খুন করার জন্য। গত সপ্তাহে এমন সেনা তৈরির অনুমোদন দিয়েছে ফরাসি সরকার।

অনেকে আশঙ্কা করছেন, ভবিষ্যতে সব দেশেই এরকম কৃত্রিম উপায়ে শক্তি বর্ধিত করে সেনা তৈরি করা হতে পারে। খবরে বলা হয়, ফ্রান্স ‘বায়ো ইঞ্জিনিয়ারিং’ বা জৈব প্রকৌশল পদ্ধতিতে সেনাদের ‘শারীরিক, মানসিক, জ্ঞান ও অনুভব করার ক্ষমতা’ বৃদ্ধি করতে চাইছে। এসব সেনার অবস্থান সম্পর্কে সব সময় নিশ্চিত থাকতে তাদের শরীরে থাকতে পারে ‘লোকেশন ট্র্যাকিং’ প্রযুক্তি।

তাদের সঙ্গে থাকতে পারে বিশেষ অস্ত্র। ফরাসি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এসব সেনা তৈরিতে বিভিন্ন ওষুধ তৈরি করেছে যেগুলো সেনাদের দীর্ঘক্ষণ সজাগ থাকতে বা লড়াই করতে সহায়ক হবে।

এমনকি তাদের শ্রবণশক্তি বাড়াতে সার্জারিও করা হতে পারে। নতুন প্রজাতির এ বিশেষ সেনাদের ডাকা হচ্ছে ‘হোমো রোবোকোপস’।

সূত্র- দ্য নিউ ইয়র্কপোস্ট, দ্য সান।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img