বুধবার, মার্চ ৩, ২০২১

দিওয়ালিতে আতশবাজি: ফের বিষাক্ত ধোঁয়ায় ঢেকে গেছে ভারতের রাজধানী

আবারো বিষাক্ত ধোঁয়া ও কুয়াশায় ঢেকে গেছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির আকাশ।

ফসলের মাঠে খড় পোড়ানো তো আছেই। তার সঙ্গে এবার যোগ হয়েছে আতশবাজি ফোটানো।

নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও এবার দিওয়ালিতে দিনরাত পোড়ানো হয়েছে লাখ লাখ বাজি। ফলে ফের ‘গ্যাস চেম্বার’ হওয়ার পথে দিল্লি। খবর এনডিটিভি’র।

শনিবার দিওয়ালির রাতে যথেচ্ছা আতশবাজির ব্যবহারের জেরে রাতেই দূষণের চাদরে মোড়ে দিল্লির বাতাস।

আনন্দ বিহারে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স দেখা গিয়েছে ৫৭২, মন্দির মার্গ এলাকায় ৭৮৫, পঞ্জাবী বাগে ৫৪৪, সোনিয়া বিহারে ৪৬২, দ্বারকা সেক্টর ১৮-এর বিতে ৫০০, শহিদ সুখদেব কলেজ অফ বিজনেস স্টাডিজের কাছে ৯৯৯ এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স লক্ষ্য করা গেছে।

করোনার জেরে দিল্লি সরকার ৩০ নভেম্বর অবধি বাজি নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিল। তবে এর পরেও রোখা যায়নি বাজি ফাটানো।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল নিজে অক্ষরধাম মন্দিরে দীপাবলির পূজা করার আগে সাধারণ মানুষকে আবেদন করেছিলেন, যাতে কেউ বাজি না ফাটান। কিন্তু তবুও বাজি ফাটিয়েছে।

তার বিষ-ফল ভুগতে হচ্ছে পুরো রাজধানী এলাকার মানুষকেই। বায়ু মানসূচক (এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স বা সংক্ষেপে একিউআই) বৃহস্পতি ও শুক্রবার ছিল যথাক্রমে ৩১৪ ও ৩৩৯। সেটাই শনিবার পৌঁছে যায় ৪১৪-তে।

যা ‘মারাত্মক (সিভিয়ার)’ দূষণের শ্রেণিতে পড়ে। গত বছর দেওয়ালি পড়েছিল ২৭ অক্টোবর। সে দিন একিউআই ছিল ৩৩৭। এবং পরের দু’দিন তা হয় যথাক্রমে ৩৬৮ ও ৪০০। ফলে আগামী দু’দিনও বাজি পুড়লে দিল্লির বিপদ যে আরও বাড়বে, তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই বিশেষজ্ঞদের।

Newseroom-insaf24-dotcom-march3-2021-3