স্বাভাবিক হচ্ছে সৌদি-তুরস্ক সম্পর্ক?

ইনসাফ | আরিফ মুসতাহসান

গত ২০ নভেম্বর সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান এর সাথে ফোনে যোগাযোগ করেন। এসময় তিনি এরদোগানকে সৌদিতে অনুষ্ঠিতব্য জি২০ সম্মেলনে অংশগ্রহণের দাওয়াত দেন।

এতেই কুটনৈতিক মহলে গুঞ্জন উঠেছে সৌদি-তুরস্ক সম্পর্ক কি তাহলে স্বাভাবিক হতে যাচ্ছে?

সৌদি- তুরস্কের সম্পর্কের বৈরীতা অনেকদিন যাবত। বিশেষ করে ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের পর সৌদি- তুরস্কের সম্পর্ক অনেকটা অবনতি হয়। একপর্যায়ে তুরস্কের পন্য বয়কটের আহবানও জানায় সৌদি।

গত মাসে অনুষ্ঠিত ওআইসির একটি অধিবেশনে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলেত সাভুসগ্লু ও সৌদির প্রতিনিধি ফয়সাল বিন ফারহান আলে সৌদ পরস্পর সাক্ষাৎ করেন। এবং উভয় দেশের বৈরী সম্পর্ক স্বাভাবিক করার ইঙ্গিত দেন।

গত ৩০ নভেম্বর সংবাদ প্রকাশ হয়, সৌদি আরবের তেল সংস্থা আরামকো’তে বিনিয়োগের অনুমতি পেয়ে তুর্কী কোম্পানি। এছাড়াও সৌদি আরব তুরস্কের নির্মিত ‘বায়রাকতার টিবিটু’ ড্রোন কিনতে আলোচনা চালাচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *