Warning: sprintf(): Too few arguments in /home/insaf24net/public_html/wp-content/themes/infinity-news/inc/breadcrumbs.php on line 252

সাংবাদিকতা চর্চার তিনটি মৌলিক উদ্দেশ্য

মাওলানা খালেদুজ্জামান | মুহাদ্দিস জামিয়া ইসলামিয়া লালমাটিয়া মাদরাসা, মুহাম্মাদপুর ও বিভাগীয় সম্পাদক, মাসিক মদীনা


১. নিজ ধর্ম ও বিশ্বাসকে কেন্দ্র করে শক্তিশালী সংস্কৃতি ও সভ্যতার বলয় তৈরী করা। শুধু বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সরবরাহ করা সাংবাদিকের একমাত্র লক্ষ্য উদ্দেশ্য নয়। বরং এটা নৈতিক দায়িত্ব। ধর্মভিত্তিক সঠিক লক্ষ্য উদ্দেশ্য ছাড়া সাংবাদিকতা চর্চা ক্রমান্বয়ে ব্যক্তি বা গোষ্ঠীকে বস্তুবাদী বিশ্বাসের দিকে নিয়ে যায়। লক্ষ্য উদ্দেশ্য ছাড়া সাংবাদিকতা চর্চা করার কারণে অনেক বিশ্বাসী মানুষও অনেক সময় বস্তুবাদী চিন্তা চেতনা দ্বারা প্রভাবিত হন। সঠিক গাইড লাইন না থাকলে অনেকে নাস্তিকও হয়ে যায়। এজন্য প্রত্যেক সাংবাদিকের জন্য যথার্থ অর্থে একজন উপদেষ্টা থাকা একান্ত প্রয়োজন।

একই সংবাদ সাংবাদিকের বিশ্বাসে বৈচিত্র্য থাকার কারণে সংবাদ শিরোনামও বৈচিত্র্যপূর্ণ হয়। উদাহরণ স্বরূপ গাড়ী এক্সিডেন্টে বহু যাত্রী হতাহত হওয়ার সংবাদ শিরোনাম হয় “সড়ক দূর্ঘটনায় অকালে ঝরে পড়ল বিশটি তরতাজা প্রাণ।” পক্ষান্তরে বিশ্বাসী সাংবাদিক এর শিরোনাম করেন, “সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে বিশজন।” অবিশ্বাসী সাংবাদিক শিরোনাম করে, “তিনি করোনা মোকাবেলা করে অবশেষে হেরে গেলেন বা হার মানলেন।” আর বিশ্বাসী সাংবাদিক শিরোনাম করে তিনি করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। মোটকথা “নিজের ধর্মভিত্তিক বিশ্বাস প্রসারের জন্য সাংবাদিকতা, সাংবাদিকতার জন্য বিশ্বাস নয়।”

২. নিজেদের পরিভাষা তৈরি ও সংরক্ষণ করা। ইতিহাস সাক্ষী দেয় যে জাতি ভাষা নিয়ন্ত্রণ করে তারাই বিশ্ব নিয়ন্ত্রণ করে। বা যারা বিশ্ব শাসন করে তারাই ভাষা শাসন করে। ইসলাম যখন গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ল এবং প্রবল প্রতাপে বিশ্ব নিয়ন্ত্রণ দখল করল তখন তারা অসংখ্য নতুন ভাষা ও পরিভাষা সৃষ্টি করেছে। ইসলাম আবির্ভাবের পূর্বে পৃথিবী সালাত, সিয়াম, হজ্ব, যাকাতসহ সহস্রাধিক ইসলামিক পরিভাষার সঙ্গে পরিচিত ছিল না। গোটা পৃথিবীতে মুসলমানরাই এই পরিভাষাগুলো পরিচিত করেছে। যেমন আমেরিকা আজ সারা বিশ্বে এইচ, আই, ভি, নভেল করোনা, বিভিন্ন গ্যালাক্সি ও গ্রহের নামকরণ করছে।

সুতরাং ভাষা শাসন করা বা নিয়ন্ত্রণ করার সঙ্গে বিশ্ব নিয়ন্ত্রণ করার এক গভীর সম্পর্ক রয়েছে। এজন্য নিজেদের ঐতিহ্যপূর্ণ ভাষা ও শব্দ ভান্ডার সংরক্ষণের পাশাপাশি নতুন পরিভাষা ও শব্দ সৃষ্টি করাও সাংবাদিকতা চর্চার একটি মৌলিক লক্ষ্য উদ্দেশ্য। বাম সাংবাদিকরা অত্যন্ত গভীর ষড়যন্ত্র করে ‘আবহাওয়া’ জাতীয় মুসলমানদের আরবি ফার্সি শব্দগুলো পরিবর্তন করে বাবুদের ‘জলবায়ু’ শব্দ দ্বারা পরিবর্তন করে দিয়েছে।

একটি ছোট শিক্ষনীয় ঘটনা। ঢালকানগর মাদরাসায় শিক্ষানবিস থাকাকালীন প্রতিদিনের রুটিন অনুযায়ী বাদ আসর মাওলানা মুহিউদ্দীন খান রহ. এর সান্নিধ্যে গিয়েছি। বাসায় ঢুকে দেখি সোফায় বসে ‘দৈনিক নয়া দিগন্ত’ পড়ছেন। হুযুর পত্রিকার একটি কলাম দেখিয়ে আমার হাতে দিয়ে বললেন, এই কলামটা পড়। আমি কলামটা পড়ে পত্রিকা রেখে দেয়ার পর হুযুর জিজ্ঞেস করলেন, কি বুঝলে? আমি সাদামাটাভাবে সংবাদের খোলাসা বললাম। হুযুর বললেন, কিছুই বোঝার নাই।

সংবাদটা ছিলো, জনৈক সাংবাদিক হাইকোর্টে রিট করেছে “আদালতে বাংলা ভাষা ব্যবহার হয় পঞ্চাশ শতাংশ। আদালতে একশো ভাগ পরিপূর্ণ বাংলা ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।” হুযুর বললেন এইসব বাম সাংবাদিক কলিকাতার বাবুদের বিশ্বস্ত ভৃত্যরা ইসলাম, মুসলমান বা ভারতবর্ষের মুসলমানদের ন্যূনতম ঐতিহ্য সহ্য করতে পারে না। এরা বাংলাভাষার স্বকীয়তা রক্ষার নামে শতাব্দীকাল ব্যাপী চলে আসা প্রচলিত আরবি ফার্সি উর্দু শব্দের বিরুদ্ধে যেমন সোচ্চার, এর বিপরিতে ঠিক এরাই আবার বাংলাভাষার সঙ্গে ইংরেজি মিশিয়ে ভাষার স্বকীয়তা নষ্ট করে জগাখিচুড়ি মার্কা ভাষা সৃষ্টি করতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। ইসলাম বিদ্বেষী এই বাম সাংবাদিকতা রুখতে সঠিক ধারার বিশ্বাসীদের সাংবাদিকতা চর্চার কোনো বিকল্প নেই।

৩. সাংবাদিককে জাতির বিবেক বলা হয়। বলাবাহুল্য সেটা অবশ্যই বস্তু নিষ্ঠ সাংবাদিক। বস্তনিষ্ঠ সাংবাদিকতার জন্য পেশাদারিত্ব দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই। আদর্শ ও পেশাদার সাংবাদিক যেমন জাতির বিবেক তদ্রূপ আত্মবিকৃত ও লেজুড়বৃত্তিক সাংবাদিকতা জাতির ক্যান্সার তুল্য। এজন্য সাংবাদিকতা চর্চার তৃতীয় মৌলিক লক্ষ্য উদ্দেশ্য হলো, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রচার করা।

পরিশেষে আমার মনে হয়, এই তিনটি মৌলিক লক্ষ্য উদ্দেশ্য নিয়েই দেশের প্রথমধারার ইসলামী অনলাইন পত্রিকা ইনসাফ প্রতিষ্ঠা করা হয়। ইনসাফ গতানুগতিক ধারার বাইরে নিজেদের স্থির একটি লক্ষ্য উদ্দেশ্য নিয়েই যাত্রা আরম্ভ করে। ইনসাফ তার অভীষ্ট লক্ষ্য পানে দূর্বার গতিতে এগিয়ে চলুক। উত্তরোত্তর সফলতার শীর্ষে উত্তীর্ণ হোক এই দোয়া করি। সেই সঙ্গে ইনসাফের দক্ষ ও কর্মঠ সম্পাদক সাইয়েদ মাহফুজ খন্দকার ভাইয়ের সুস্থতাসহ দীর্ঘ নেক হায়াত কামনা করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *