Warning: sprintf(): Too few arguments in /home/insaf24net/public_html/wp-content/themes/infinity-news/inc/breadcrumbs.php on line 252

ইনসাফকে আল্লাহ্‌ শতশত বছর বাঁচিয়ে রাখুন | মুফতী মিজানুর রহমান সাঈদ

মুফতী মিজানুর রহমান সাঈদ | প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক : শাইখ যাকারিয়া ইসলামিক রিসার্চ সেন্টারের


আলহামদুলিল্লাহ! ইসলামের একটি বৈশিষ্ট্য হলো, সবসময় যুগীয় চাহিদা পূরণ করার ব্যবস্থা দিয়ে ইসলাম প্রতিষ্ঠিত। কোনো যুগে মানবজাতি সমস্যায় পড়বে, আর ইসলাম তার সমাধান দিবেনা এমনটি নয়। মানুষ যে যুগে যে অবস্থায় উপনীত হয়, যাহাই প্রয়োজন হয়, ইসলাম তাৎক্ষণিক সেই অবস্থার উপযোগী বিধান দিয়ে থাকে। এ জন্যই আজকে লকডাউনের সময় নামাজ পড়া না পড়ার বিষয়ে নতুন নতুন যেসব মাসআলা আসছে, করোনা ভাইরাস না হলে এই মাসআলাগুলো আমাদের সামনে আসতো না। একেকটা সমস্যা আসছে আর ইসলাম সাথে সাথেই তার সমাধান দিয়েছে।

দাওয়াহ্ বা প্রচারের যতো সিস্টেম ইসলামের শুরুলগ্ন থেকে ছিলো, নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়া-সাল্লাম ও সাহাবায়ে কেরামের যুগে তা দিনদিন উন্নতি করতে করতে একসময় ঘোড়ায় চড়ে পত্র বাহকরা পত্র আদান প্রদান করতো। সেই চীন থেকে ইরাকে মাত্র ৩ দিনে পত্র আসা যাওয়া করতো। সেটিও একটি যুগ ছিলো। যুগের ধারাবাহিকতায় আধুনিককালে সাইন্স ও টেকনোলজির কারণে একসময় প্রিন্ট মিডিয়া আসলো। শুধু প্রিন্ট পত্রিকার দ্বারা প্রতিদিন খবরাখবর পাওয়া যেতো। এরপর রেডিও টিভি আসলো। এভাবে আসতে আসতে বর্তমানে আমরা একদম আধুনিকতর যুগে অবস্থান করছি। বর্তমান যুগের সোশ্যাল মিডিয়া, ফেসবুক, অনলাইন গণমাধ্যম ইত্যাদি প্রত্যেকটা যুগীয় বিষয়কে আমাদের মুসলমানদের উচিত ইসলামের সপক্ষে কাজে লাগানো। একটিও যেনো ইসলামের বিপক্ষে না লাগে। আমরা যদি ইসলাম বলতে শুধু ১৪০০ বছর আগের ইসলামকেই বুঝি, বর্তমান যুগীয় বিষয়াদির সাথে যদি ইসলামের সমন্বয় না করি, তাহলে এই দৃষ্টিভঙ্গি আস্তে আস্তে আমাদেরকে বাতিলের দিকে ধাবিত করবে এবং ইসলামকে নিশ্চিহ্ন করে দিবে। তাই আমাদের দায়িত্ব হলো যুগোপযোগী সব বিষয়গুলোকে ভালোভাবে রপ্ত করে ইসলামের বিধান অনুযায়ী এগুলোকে পরিচালনা করা এবং ইসলামের খেদমতেই লাগানো।

আলহামদুলিল্লাহ! বর্তমানে ইনসাফসহ প্রত্যেকটি ইসলামী মিডিয়াকে আমি অন্তর থেকে সাপোর্ট করি এবং অত্যন্ত মূল্যবান মনে করি। এদের মাধ্যমে ইসলামের বিরাট খেদমত হচ্ছে এবং আরো হবে বলে মনে করি। তবে এক্ষেত্রে আমার পরামর্শ হলো, ইসলামী মিডিয়া আর অনৈসলামিক মিডিয়ার মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে। আমাদেরটা যেহেতু ইসলামী মিডিয়া তাই কোনরকম মিথ্যার আশ্রয় না নিয়ে সত্যের উপর এটাকে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। মিডিয়ার মাধ্যমে মিথ্যা তথ্য দেওয়া, মানুষকে ধোকা দেওয়া ইত্যাদি থেকে ইসলামী মিডিয়াগুলো বর্তমানে যেমন বিরত আছে ভবিষ্যতেও বিরত থাকতে হবে। ইসলামী মিডিয়ায় এগুলো থাকতে পারেনা আর এগুলো থাকলে সেটা ইসলামী মিডিয়া হতে পারেনা।

সেক্ষেত্রে খুশির কথা হলো, দেশের অন্যতম ইসলামী মিডিয়া ইনসাফ ইতিমধ্যে অর্ধযুগ পার করেছে। তারা খুব সুন্দরভাবে এবং ভালোভাবে বড় বড় দায়িত্বশীল উলামায়ে কেরামের ছায়াতলে কাজ করছে। এটাই আমাদের আস্থার জন্য যথেষ্ট। তাই এই ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে ইনসাফ ও এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও মোবারকবাদ জানাই। দুআ করি অর্ধযুগ নয়; শতশত বছর আল্লাহ্ এই মিডিয়াকে জীবিত রাখুন। বিচক্ষণ উলামায়ে কেরামের দিকনির্দেশনায় ইনসাফ আরো উন্নতি লাভ করুক, আরো ব্যাপকতা লাভ করুক।

আমি আন্তরিকভাবে ইনসাফের প্রতি শুকরিয়া আদায় করছি। প্রত্যেক মুসলমানকে এ ধরনের ইসলামী মিডিয়ার সাথে যুক্ত থাকাকে জরুরি মনে করি। আল্লাহ্ তাআ’লা সকলকে জাযায়ে খায়ের দান করুন। আমীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *